‘আরবান ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ’-এ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা

শহরাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবা, আবাসন, জ্বালানীসহ বিভিন্ন সমস্যা কার্যকর সমাধানের উপায় উদ্ভাবন করে চারটি ক্যাটাগরি থেকে পাঁচটি দল বিজয়ী হয়েছে। বিজয়ী দলগুলো হচ্ছে নবায়নযোগ্য জ্বালানী ক্যাটাগরিতে নিরভানা, সিটি বার্ড, হেলথ কেয়ার ক্যাটাগরিতে যত্ন হেলথকেয়ার, লো কস্ট আরবান হাউজিং ক্যাটাগরিতে অনুষঙ্গ,ওয়াশ ক্যাটাগরীতে ড্রিংক ওয়েল। এছাড়া বিশেষ পুরস্কার পেয়েছেন রেসপনসিভ আরবানিস্ট।

‘আমাদের শহরের সমস্যা, আমরাই করব সমাধান’ স্লোগান নিয়ে এই ‘আরবান ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ’-এর আয়োজন করে ব্র্যাক। আজ সোমবার (২৭শে নভেম্বর ২০১৮) মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ ও জলবায়ু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. আতিকুর রহমান।

আরও উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট পরিবেশ বিজ্ঞানী ড. আইনুন নিশাত, এই প্রতিযোগিতার জুরি বোর্ডেও সদস্য ও ব্র্যাকের স্ট্র্যাটেজি, কমিউনিকেশনস অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট কর্মসূচির উর্ধ্বতন পরিচালক আসিফ সালেহ, আইসিটি মন্ত্রণালয়ের স্টার্টআপ প্রকল্পের উপদেষ্টা টিনা জাবিন, প্রথম আলোর ইয়ুথ কো-অর্ডিনেটর মুনীর হাসান, ইএমকে সেন্টারের ডিরেক্টর নাভিদ আকবর, গ্রীণ ডেল্পা লাইফ ইন্সুরেন্সের নির্বাহী প্রধান ফারজানা চৌধুরী। ব্র্যাক নগর উন্নয়ন কর্মসূচির প্রধান হাসিনা মুশরফা, বিশেষজ্ঞগণ ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ।

দেশের শহরাঞ্চলের সমস্যা সমাধানে মেধাবী তরুণদের উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগাতে চায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। তাই তরুণ উদ্ভাবক খুঁজছে তারা। এলক্ষ্যে গত ২৪ শে জুলাই দ্বিতীয়বারের মতো শুরু হয় আরবান ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ। এতে প্রায় ৩০০ উদ্ভাবনী আইডিয়া জমা পড়ে, যা থেকে চূড়ান্ত পর্বে ১৩টি নির্বাচন করা হয়। এই পর্বে স্বল্প খরচে আবাসন, স্বাস্থ্যসেবা, সুপেয় পানি ও পয়:নিষ্কাশন, নবায়নযোগ্য জ্বালানী ও জলবায়ু পরিবর্তন এই পাঁচটি বিষয় থেকে আইডিয়া নিয়ে তাদের পুরস্কৃত করা হয়।

বিজয়ী দলগুলো ব্র্যাক প্রতি টিমকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত অনুদান প্রদান করা হবে। ব্র্যাকের সহায়তায় প্রতিটি দল ছয় মাসের মধ্যে তারা তাদের সমাধান পরিকল্পনা বাস্তবে রূপদানের সুযোগ পাবে।

ড. আতিকুর রহমান উদ্ভাবনী বিষয়ে পুরস্কৃত করার উদ্যোগ নেওয়ার জন্য ব্র্যাককে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তরুণরা তাদের নতুন উদ্ভাবনী সমস্যা তুলে ধরে। এতে প্রতিভাব বিকাশের পাশাপাশি বিভিন্ন সমস্যা আরও সহজভাবে সমাধান করা সম্ভব।

অনুষ্ঠানে ড. আইনুন নিশাত বলেন, সমাজকে যদি এগিয়ে নিতে হয়, তাহলে উদ্ভাবনীর বিকল্প নেই। তবে আমাদের চিন্তা করতে হবে কিভাবে গ্রামের প্রোডাক্টটা শহরে নিয়ে আসা যায় সে ব্যাপারে উদ্যোগী হতে।

আসিফ সালেহ বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে অংশীদারিত্ব জরুরি। ব্র্যাক শুরু থেকে এ বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। তবে ইনোভেশনের সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে: সমস্যাকে সহজভাবে বুঝা। এর পাশাপাশি এখানে বিজনেস প্ল্যান জরুরি তেমনি দলগুলোর ডায়নামিক হওয়াটাও জরুরি।

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা