খুলনায় প্রতিবন্ধীবান্ধব আধুনিক পাবলিক টয়লেট উদ্বোধন

খুলনার শহীদ হাদিস পার্কে আধুনিক মানের পাবলিক টয়লেট উদ্বোধন হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন এবং ইউনিলিভারের সহায়তায় এই পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করেছে ব্র্যাকের আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম।

প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদেরও ব্যবহার উপযোগী এই পাবলিক টয়লেটে সার্বক্ষনিক ২ জন হরিজন সম্প্রদায়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োজিত থাকবেন। আধুনিক এই টয়লেট ন্যূনতম ব্যয়ে ব্যবহার করা যাবে। এ ছাড়া নিরাপদ খাবার পানি, বুকের দুধ খাওবার স্থান, শিশুদের ডায়াপার, নারীদের স্যানিটারি ন্যপকিন ও লকার ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে। এটি পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করেছে খুলনা শহরের ৮০ হাজার স্বল্প আয়ের মানুষের সংগঠন খুলনা নগর উন্নয়ন মহিলা সমবায় সমিতি।

আজ সোমবার (২৪শে ফেব্রুয়ারি) এর উদ্বোধন করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ্ এবং ইউনিলিভার বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব কেদার লেলে। উক্ত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাক আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের পরিচালক লিয়াকত আলী, কেসিসি, ব্র্যাক, ইউনিলিভার ও খুলনা শহরে কর্মরত বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারি, সাংবাদিক, নগরগবেষক ও শহরের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রধান অতিথি কেসিসি মেয়র জনাব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, ‘উক্ত পাবলিক টয়লেটটির নির্মাণ সরকারি-বেসরকারি-কমিউনিটি পার্টনারশিপের একটি উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। টয়লেটটির পরিবেশের পরিচ্ছন্নতা ও নিরাপত্তার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ভবিষ্যতে নগরীতে এরকম আরো উন্নত আধুনিক টয়লেট নির্মাণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ বলেন, ‘দরিদ্র সাধারণ মানুষ বিশেষ করে নারী ও শিশুদের জন্য নিরাপদ স্যানিটেশনের সুবিধা বাংলাদেশের নগর অঞ্চলে নেই বললেই চলে। আমাদের এই উদ্যোগ সেই সমস্যা নিরসনে প্রাথমিক একটি পদক্ষেপ। নগরের দরিদ্র মানুষের জন্য টেকসই একটি সমাধান হাজির করতে পেরেছি আমরা এবং এর মাধ্যমে সরকার, ব্যক্তিমালিকানা খাত ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার মধ্যে সহযোগিতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপিত হয়েছে।

ইউনিলিভার বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেদার লেলে বলেন, ‘স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন সুবিধা মানুষের মৌলিক অধিকার। কিন্তু সব মানুষের সেই সুযোগ নেই। এই পাবলিক টয়লেটটিতে বিভিন্ন ব্যবস্থা করা হয়েছে শুধু স্যানিটেশনের সুবিধা দেওয়ার জন্য নয়, বরং সাধারণ মানুষের মধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভ্যাস গড়ে তুলতে সহায়তা করাও আমাদের লক্ষ্য। আমরা বিশ্বাস করি, শুধু স্যানিটেশন সুবিধা দিলেই হবে না, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভ্যাস গড়ে তোলাও জরুরি। ইউনিলিভার উপযুক্ত ও পর্যাপ্ত স্যানিটেশন সুবিধা প্রাপ্তিতে বিশ্বাস করে এবং সে লক্ষ্যে এই পাবলিক টয়লেটটি একটি বিপ্লবের শুরু মাত্র।’

প্রসঙ্গত, ব্র্যাক ও ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেডের মধ্যে স্বাক্ষরিত সমঝোতা চুক্তির আওতায় আধুনিক মানসম্মত এই পাবলিক টয়লেট স্থাপন করা হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্বের আওতায় এই পাবলিক টয়লেটের জায়গা দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। এর তদারকির দায়িত্বেও থাকবে তারা। ব্র্যাকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এটি একটি পাইলট প্রজেক্ট। পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য এলাকাতেও এরকম টয়লেট নির্মাণ করা হবে।

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা